Wellcome to National Portal
মেনু নির্বাচন করুন
Main Comtent Skiped

ইউনিয়ন পরিষদের সাথে জরুরী যোগাযোগঃ- মোঃ মতিয়ার রহমান , চেয়ারম্যান, মোবাইল- ০১৭১৮১৪৮৮৮৫ অথব ০১৭১১৪১৫৭১৭ মোঃ মামুন মন্ডল, ইউপি সচিব, মোবাইল- ০১৬৫০০৬৯৩৫৩ অথবা ০১৯৫৬৯৩৬৫৮৭ মোঃ মাহাবুবুর রহমান, দেশসেরা উদ্যোক্তা, মোবাইল- ০১৭৪৬২১০৫২৩ অথবা ০১৯৭৬২১০৫২৩ ধন্যবাদ... 



কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্র

কামারজানি ইউনিয়নের গোঘাট গ্রাম (গুচ্ছ গ্রাম) এর নয়া দাফাদারের বাড়ী  সংলগ্ন কড়াইবাড়ীগামী রাস্তার পাশে কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে।

যেখানে নিয়মতি গাভীর কৃত্রিম প্রজনন করা হয়। উক্ত দায়িত্বে গাইবান্ধা সদর উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিস কর্তৃক এক জন এ আই টেকনিশিয়ান নিযুক্ত করা হয়েছে।

পরিচিতি

ছবি নাম মোবাইল

মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বকসী

(উপ-সহকারী প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা)

01710646960
সুবাস চন্দ্র পাল
(এ আই টেকনিশিয়ান)
01740298863
     
     

কৃত্রিম প্রজননের উদেশ্য

১.কম সময়ে গরুর জাত উন্নত করা।

২. অধিক কর্মসংস্থানের সুবিধা।

৩.দুধ ও মাংসের ঘাটতি পুরন করা।

৪. আমিষ খাদ্যের উৎপাদন বৃদ্ধি করা।

কৃত্রিম প্রজননের সুবিধা

১. একটি ষাঁড় থেকে প্রতিবারের সংগৃহিতবীর্য প্রক্রিয়াজাত করে ৩০০-৪০০টি গাভীকে প্রজনন করা যায়।

২. গাভীরগর্ভধারনের হার বৃদ্ধি পায়।

৩. বেশি ষাঁড় পোষার দরকার হয়না,ফলে ব্যয়হ্রাস পায়।

৪. ভিন্ন ভিন্ন জাত বা প্রজাতির মধ্যে প্রজনন করে উন্নতজাত তৈরী করা যায়।

৫. উন্নত জাতের ষাঁড়ের বীর্য ব্যবহার করে ভালজাতের গরু পাওয়া যায়।

কৃত্রিম প্রজননের অসুবিধা

১.দক্ষ লোক দরকার হয়।

২. সুক্ষ ভাবে গরমের সময় নির্ণয় করতে হয়।

৩.ঠিকমতষাঁড়ের বীর্য বাছাই নাহলে কৃত্রিম প্রজননের উদেশ্য ব্যহত হয়।

৪. গরমগাভী সনাক্ত করা কঠিন হয়ে পড়ে।

প্রজননে গাভীর উপযুক্ত বয়স

১.দেশী জাতের বকনা প্রথম প্রজননের উপযুক্ত হয় ২-২.৫ বছর বয়সে।

২.উন্নত সংকর জাতের বকনা প্রথম প্রজননের উপযুক্ত হয় ১.৫-২ বছর বয়সে।

গাভী গরমহওয়া বা ঋতুকালের লক্ষন

১.গাভীর অস্থিরতা বাড়ে এবংগাভী ঘন ঘন ডাকে।

২. ঘন ঘন প্রস্রাব করে এব গাভীর দুথ কমে যায়।

পশুগর্ভবতী হওয়ার লক্ষন

১. ঋতু চক্র বন্ধ হয়ে যায়।

২.গাভী আর ডাকে আসে না বা গরম হয়না

গুগোল লোকেশন